মুখ্যমন্ত্রীর আশ্বাসে ঘরের স্বপ্ন পূরণের দিশা নিয়তি- চাম্পদের




সুদিপ ঘোষ,ঝাড়গ্রাম 

 সকাল দশটা থেকে ঠাঁয় দাঁড়িয়ে ছিলেন ওরা। যদি এক বার কথা বলা যায়।২০-৩০ বছর ধরে জঙ্গলে আদাড়ে বাদাড়ে তাঁদের বাস। নিজেদের নামে এক টুকরো জমির জন্য আবেদন করবেন মুখ্যমন্ত্রী কে। ঝাড়গ্ৰাম ছাড়ার আগে, ওই অপেক্ষমান নিয়তি,সারথী,চম্পাদের হতাশ করেনি মুখ্যমন্ত্রী। বিষয়টি নিয়ে পর্যালোচনার আশ্বাস দিলেন। পৌরসভার প্রশাসনিক বোর্ডের চেয়ারম্যানের সঙ্গে কথা বলার পাশাপাশি জেলাশাসক কে বিষয়টি দেখে নেওয়ার নির্দেশ দিলেন।আর তারপরেই মুখ্যমন্ত্রীর নামের জয়ধ্বনি করলেন ঝাড়গ্রাম এর ওই প্রান্তিক পরিবারের লোক জনেরা। জেলার উন্নয়নে মুখ্যমন্ত্রী কার্পণ্য করেননি। দরাজ হস্তে দিয়েছেন একের পর এক উন্নয়ন প্রকল্প। সে কথা অজানা নয় ঝাড়গ্রাম এর মানুষের কাছে। তাই জেলা ছেড়ে কলকাতা যাবার আগে মুখ্যমন্ত্রীর কাছে এক টুকরো জমির জন্য আবেদন জানাতে সকাল থেকে অপেক্ষায় ছিলেন সত্যবান পল্লীর বাসিন্দা নিয়তী সিং, সারথি সিং, চম্পা সিংরা। আর মুখ্যমন্ত্রী কে দেখেই তারা বলে উঠেন, "দিদি, আমাদের কিছু নেই। ঘর নেই, জমি নেই। 



পাট্রা দেওয়ার একটা ব্যবস্থা করে দিন। এই আবেদন শুনেই দাঁড়িয়ে পড়েন মুখ্যমন্ত্রী। বলেন, "সব করে দেওয়া হয়েছে। ওটা নিয়ে আলোচনা হয়েছে। রিভিউ হবে। আপনারা দুর্গেশ বাবুর সঙ্গে কথা বলুন। এরপরই জেলাশাসককে বিষয়টি দেখে নেওয়ার নির্দেশ দেন। তারপরই ঝাড়গ্রাম ছেড়ে কলকাতার উদ্দেশ্যে রওনা দেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

0/Post a Comment/Comments