১৬০ তম রবীন্দ্রজয়ন্তী উৎসবকে সামনে রেখে প্রভাতফেরী,

১৬০ তম রবীন্দ্রজয়ন্তী উৎসবকে সামনে রেখে প্রভাতফেরীর মধ্যে লকডাউন এর মধ্যে মানুষজনদের মধ্যে বিশেষ প্রচার চালানো হয় থানা পুলিশ প্রশাসনের তরফে। 
বাবাই সূত্রধর, গঙ্গারামপুর ৮মে দক্ষিণ দিনাজপুর :- রবীন্দ্র জয়ন্তী অনুষ্ঠান পালনের মধ্যে দিয় লক ডাউনের  বিষয়ে সাধারণ মানুষজনকে সচেতনতার  বার্তা দিলেন থানার পুলিশ প্রশাসন। শুক্রবার দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার বিভিন্ন থানার পাশাপাশি গঙ্গারামপুর থানার পুলিশের তরফে ১৬০ তম রবীন্দ্রজয়ন্তী উৎসব কে সামনে রেখে প্রভাতফেরীর মধ্যে দিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর লেখা গান যা ইন্দ্রনীল সেন গিয়েছেন সেই গানের মধ্যে দিয়ে বিশেষ প্রচারে চালানো হয় থানা পুলিশের তরফে। পাশাপাশি গ্রীনজনে থাকা এ জেলার গঙ্গারামপুর ব্লকের অশোকগ্রাম  গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার মানুষজনদের সচেতন করতে এক সচেতনতা মূলক সভার আয়োজন করা হয়েছিল। সেখানে সকলেই যেন একটি বার্তা দিলেন যে, লক ডাউন মেনে চলুন, সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে চলুন। সকলে ভাল থাকুন সুস্থ থাকুন। 



   শুক্রবার ২৫ বৈশাখ কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ১৬০ তম জন্মদিন। রবীন্দ্রজয়ন্তী অনুষ্ঠান কে সামনে রেখে রাজ্যে পুলিশ প্রশাসনের নির্দেশে এ জেলার বিভিন্ন থানার পুলিশ প্রশাসনের তরফে পালন করার পাশাপাশি গঙ্গারামপুর থানা পুলিশ প্রশাসন তা পালন করল। এদিন সকালে থানা পুলিশ প্রশাসনের তরফে আইসি পূর্ণেন্দু কুমার কুন্ডু, অফিসার সমির মন্ডল, প্রোট্রিক কেরকাট্টা, শুভঙ্কর চক্রবর্তী, গৌরব হাঁসদা, সহ থানার সমস্ত অফিসার সিভিকদের নিয়ে একটি প্রভাত ফেরীর  আয়োজন করা হয়। প্রভাতফেরীটি নিউমার্কেট, বড় বাজার, হাইরোড সহ বিভিন্ন জায়গাতে ঘুরে ঘুরে মুখ্যমন্ত্রী লেখা গান যা ইন্দ্রনীল সেন গিয়েছেন সেই গানের মধ্যে দিয়ে বিশেষ লক ডাউন এর প্রচার চালানো হয় থানা পুলিশ প্রশাসনের তরফে। সেখানে মানুষজনদের প্রভাত ফেরীর মধ্যে দিয়ে বার্তা দেওয়া হয় যে, লকডাউন মেনে চলুন, সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে চলুন। সকলেই ভাল থাকুন সুস্থ থাকুন । থানায় মিছিলটি ঘুরে এসে সেখানে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ছবিতে মাল্যদান করেন হাজীপুর নন্দকুমার কুন্ডু, থানার বাকি সমস্ত পুলিশ অফিসার, সিভিক সহ বিভিন্ন কর্মীরা। থানার আইসি তরফে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের  উপর বক্তব্য রাখেন।
গঙ্গারামপুর থানার আইসি পূর্ণেন্দু কুমার কুন্ডু জানিয়েছেন, রাজ্য জেলা পুলিশ প্রশাসনের নির্দেশে কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের জন্ম দিবস পালন করা হয়েছে। সেখানে মানুষজনদের সচেতনতার বার্তা দেওয়া হয়েছে। লকডাউন মেনে চলুন সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে চলুন সকলে ভাল থাকুন সুস্থ থাকুন।
 করোনা পরিস্থিতিতে এজেলা গ্রীনজনে অবস্থান করায় জেলা পুলিশ প্রশাসনের নির্দেশে গঙ্গারামপুর থানার আইসি পূর্নেন্দু কুমার কুন্ডু, বহরমপুর থানার অশোক গ্রাম গ্রাম পঞ্চায়েতের পুলিশ ক্যাম্প এলাকায় নিজে উপস্থিত থেকে থানার পুলিশ অফিসার শুভঙ্কর চক্রবর্তী সহ বাকি অফিসার, সিভিক দের সঙ্গে নিয়ে গিয়ে সচেতন মূলক আলোচনা সভায় আয়োজন করেন পঞ্চায়েত অফিসে ও তার সামনেও। সেখানে থানার আইসি পূর্ণেন্দু কুমার কুন্ডু, অফিসার শুভঙ্কর চক্রবর্তী ছাড়াও গ্রাম পঞ্চায়েতের উপপ্রধান ক্ষীর মোহন রায়, কর্মাধ্যক্ষ কুরমান আলী সহ অনেকেই উপস্থিত ছিলেন।
আইসি পূর্নেন্দু কুমার কুন্ডু জানিয়েছেন, করোনা পরিস্থিতিতে গ্রীনজনে থাকা কালিন বাসিন্দাদের কিভাবে চলাচল করা উচিত সে বিষয়ে বাসিন্দাদের বলা হয়। অশোক গ্রাম গ্রাম পঞ্চায়েত থেকে শুরু করা হয়েছে এমন প্রচার যা, বাকি পঞ্চায়েত এলাকা গুলিতেও করা হবে। 
  গঙ্গারামপুর থানার এস আই শুভঙ্কর চক্রবর্তী জানিয়েছেন, এমন পরিস্থিতিতে ঠিকভাবে বাসিন্দাদের চলাচল করা উচিত, সরকারি নিয়ম মেনে কিভাবে এ সময়ে চলতে হবে সে বিষয়ে তাদের বলা হয়েছে এমন সভার মধ্য দিয়ে। মানুষজনদের সুবিধা করে দিতেই আমরা এমন কাজ করে যাচ্ছি যা আমি ডিনার করে যাব।
অশোক গ্রাম গ্রাম পঞ্চায়েতের উপপ্রধান ক্ষীর মোহন রায় ও এলাকার পঞ্চায়েত সমিতির কর্মাধ্যক্ষ কুরমান আলীরা জানিয়েছেন, এমন সচেতনতামূলক প্রচার এর মধ্য দিয়ে মানুষজনদের অনেক অর্থেই উপকৃত হবেন বলে তা আশাবাদী । ধন্যবাদ জানায় পুলিশ প্রশাসনকে।
ফের গঙ্গারামপুর থানা পুলিশ প্রশাসনের এমন কাজে প্রশংসা করেছে গঙ্গারামপুরবাসী।

0/Post a Comment/Comments