বাবু!, আর কত শত মাইল পরে মোদের সোনার গ্রাম |




মহঃ নুর হোসেন জমাদার, 

চোখের কোনা দিয়ে একনাগাড়ে গড়িয়ে পড়ছে জল | অচল তাদের দেহ,   কোনোক্রমে পা টেনে টেনে ফেলেছে | এদের অনেকেই চারদিন পাঁচ দিন ধরে কিছু খাইনি | 

চাতক পাখির ন্যায় কেবল  সামনের অদৃশ্য পথের দিকে তাকাচ্ছে | আর কত শত মাইল হাঁটতে হবে আর কতদিন হাঁটতে পারবো | খাদ্য তো কাছে নেই, জলও নেই | কটা বিস্কুটের প্যাকেট নিয়ে বের হয়েছিলাম সে কবে শেষ হয়ে গেছে | 



একি!, আপনাদের যে পায়ের পাতা থেকে রক্ত বেরোচ্ছে  | ভ্রুক্ষেপ নেই  প্রশ্নের দিকে | তারা সজল নয়নে কেবল বলে,  আর কতদিন পরে গ্রামে পৌঁছাবো | হ্যাঁ, আমি আমার দেশের শ্রমিক মজুর মুটে কুলিদের কথা বলছি | যারা  জীবনের তাগিদে বছরের বিভিন্ন সময়ে পাড়ি দেয় এ রাজ্য থেকেও রাজ্যে | 

এদের উপার্জন ও অতি সামান্য | তার ওপর একান্নবর্তী পরিবারের দায়িত্ব আছে অনেকের উপর | সরকার হঠাৎ লকডাউন ঘোষণা করার ফলে এই ভিন রাজ্যে থাকা শ্রমিকরা আর বাড়ি ফিরতে পারেনি |

 তার ওপর কর্ম নেই, উপার্জন নেই এবং খাওয়ার ও থাকার পয়সা নেই |
অবশেষে তারা বাধ্য হল পায়ে হেঁটে এই  ভীষণ পথ পাড়ি দিতে | এতো এক-আধ দিনের রাস্তা নয় | তাদের মধ্যে কেউ পনেরো দিন বা কুড়ি দিন ধরে পথ চলছে | তাদের মধ্যে কেউ বারোশো কেউ পনেরশো কেউবা দুই হাজার মাইল পথ  পাড়ি দিচ্ছে | 

এদের মধ্যে কেউ কেউ আবার চড়া দামে সাইকেল কিনে তার ভরসায় যাত্রা পথ পাড়ি দিচ্ছে | অনেকে ট্রাকে  করে বা তেলের গাড়িতে করে অতিরিক্ত ভাড়া দিয়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ফিরছে নিজেদের বাড়ির পথে | 





আসতে আসতে পথের মাঝেই অনেকে নিজের জীবনের অন্তিম নিঃশ্বাস ত্যাগ করছে | বিগত কয়েকদিন ধরে সরকার দূরপাল্লার ট্রেনে করে তাদেরকে ঘরে ফেরার ব্যবস্থা করলেও, হয়তো সেটা তাদের জন্য যথেষ্ট পরিষেবা হচ্ছে না |

 আমাদের সমাজের বুদ্ধিজীবীদের বৃহৎ অংশের জোরালো দাবী যে সরকার যদি  আমাদের দেশের মানুষরা 
 যারা অন্য দেশে ছিল তাদেরকে ফিরিয়ে আনতে পারে,  তবে দেশের অভ্যন্তরের শ্রমিকদের  প্রতি সরকার এত উদাসীন কেন? |

 কিন্তু যারা দীর্ঘ পথ পাড়ি দিয়ে আসছে তাদের আজ খুব সামান্য দাবি, তারা কেবল বলছে আমরা অনেকদিন ধরে কিছু খাইনি আর আমরা নিজের পরিবারের কাছে ফিরতে চাই |

0/Post a Comment/Comments