লকডাউনের ফলে বদলে যাচ্ছে পেশা


আক্তারুল খাঁন,হাওড়া(আমতা):


 লকডাউনে বদলে যাচ্ছে পেশা।বদলে যাচ্ছে মানুষের জীবনযাত্রা।বদলাচ্ছো তুমি , আমি,সকলে। ধরিত্রীর বুকে এই অবাক পৃথিবীও যাচ্ছে বদলে ! কিন্তু থেমে নেই মানুষের কর্ম ! থেমে নেই আব্বাজানদের প্রতিশ্রুতি ! তাই পেশা বদলালেও নতুন পেশায় মানিয়ে নিচ্ছেন সকলে ।কিন্তু কিভাবে ? লক ডাউনে হাওড়ার আমতা,বাগনান, উলুবেড়িয়া, উদয়নারায়নপুর এলাকায় বাড়ছে সবজি বিক্রেতার সংখ্যা। অনেকেই আলু পটল নিয়ে রাস্তার ধারে পসরা সাজাচ্ছেন। কেউ কেউ আবার টোটোতে সবজি নিয়ে পাড়ায় পাড়ায় ঘুরছেন। বাড়ির দরজায় দরজায় ঘুরে সবজি বিক্রেতার সংখ্যাও বেড়ে গিয়েছে। লক ডাউনের জেরে কাজ বন্ধ। কাজ হারিয়ে বিপাকে পড়েছেন অনেকেই। উপার্জন বন্ধ হয়ে যাওয়ায় অনেকের সংসার চালানো দায় হয়ে দাঁড়িয়েছে। এদিকে দৈনন্দিন প্রয়োজনের কথা ভেবে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের সঙ্গে সবজি বেচাকেনায় ছাড় দেওয়া হয়েছে। কাজ হারিয়ে অনেকে তাই সবজি বিক্রি করে সংসার চালানোর পথ বেছে নিয়েছেন। অনেকে বাড়ি বাড়ি সবজি ফেরি করছেন। এতে বাসিন্দাদেরও সুবিধা হচ্ছে। তাঁরা বাড়ির দরজায় টাটকা সবজি পাচ্ছেন। লক ডাউন ভেঙে বাইরে বেরনোর প্রয়োজন পড়ছে না। হাওড়ার আমতা গাজীপুরের বাসিন্দা বিশ্বনাথ মুখার্জী বাসের কন্টাক্টর ছিলেন সংসার চালাতে না পেরে গাজীপুর বাজারে সবজি বিক্রি করছেন। জয়পুরের বাসিন্দা করিম খাঁন টোটো চালিয়ে সংসার চালাতো। রমজান মাস চলায় এখন সে ফল বিক্রি করছে টোটোয় করে। এমনই ভাবে হাওড়া জেলার বিভিন্ন প্রান্তের অন্য পেশায় যুক্ত মানুষদের জীবন গতির চাকায় এখন লকডাউন।লকডাউন তাঁদের কর্মব্যস্ততায়।লকডাউন ধূলোয় মেশানো স্মৃতিতেও ! তবে থেমে নেই জীবন যাত্রা।থেমে নেই ছোট্ট শিশুর পিতাও।জীবনরক্ষার তাগিদে এখন অন্য পেশায় চলছে তাঁদের রথের চাকা !

0/Post a Comment/Comments

Previous Post Next Post
Contact for advertising : 9831738670