ভিন রাজ্য থেকে হাঁটা পথে বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা দিল পরিযায়ী শ্রমিকরা,






বাবাই সূত্রধর,

দক্ষিণ দিনাজপুর,৯মে;

ভিন রাজ্য থেকে হাঁটা পথে বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা দিল পরিযায়ী শ্রমিকেরা।বেশ কয়েক দিন আগে উত্তর প্রদেশের গৌরবপুর থেকে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার পতীরামের  উদ্দেশ্যে পায়ে হেঁটে রওনা দেয় প্রায় ৬০ শ্রমিক ।শনিবার সকালে সেই শ্রমিকেরা রেল লাইন ধরে পায়ে হেঁটে গঙ্গারামপুর এসে পৌঁছালে তাদের পুলিশ প্রশাসন থেকে শুরু করে বিভিন্ন সংগঠনের তরফে খাবারের পাশাপাশি চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়।প্রশাসনের উদ্যোগে তাদের বাড়ি পৌঁছে দেবার চেষ্টা চলছে।




            করোনা আতঙ্কে দেশ জুড়ে লক ডাউন শুরু হয়েছে মাস খানেক ধরে।ইতি মধ্যে বিভিন্ন রাজ্যের বিভিন্ন জেলায় রেড জোন করা হয়েছে প্রশাসনের তরফে।ফলে যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে।বন্ধ রয়েছে রেল চলাচল, বড়ো বড়ো ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান।


বেশ কয়েক মাস আগে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার পতিরাম এলাকার বহু মানুষ উত্তর প্রদেশের গৌরব পুর এলাকায় রাজমিস্ত্রি সহ আরো অন্যান্য কাজকর্ম করতে গিয়েছিল।
লক ডাউনের ফলে তারা সেখানে বেশ কয়েক সপ্তাহ আটকে পরে। 


চারিদিকে লক ডাউন শুরু হওয়ায় বাড়ির উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেন তারা।   কোনো রকমে কাটিহার পযন্ত এসে  পৌঁছায় সেই সমস্ত শ্রমিকেরা। কাটিহার থেকে পতিরামের উদেশ্যে যাত্রা শুরু হন পায়ে হেঁটে।প্রায় ৬দিন ধরে রেল লাইনের উপর দিয়ে পায়ে হেঁটে শনিবার সকালে গঙ্গারামপুর এসে পৌঁছান প্রায় ৬০ জন পরিযায়ী শ্রমিকেরা বলে দাবি তাদের।পরিযায়ী শ্রমিকদের পায়ে হেঁটে বাড়ি ফেরার খবর পেতেই মুড়ি , চীরা,গুর সহ অন্যান্য শুকনো খাবার নিয়ে পরিযায়ী শ্রমিকদের মুখে খাবার তুলে দিতে গঙ্গারামপুর রেল স্টেশনে পৌঁছান  তৃণমূল ছাত্র ও যুব সংগঠনের কর্মকর্তারা। তারা শুকনো খাবার গুলো তুলে দেন পরিযায়ী শ্রমিকদের হাতে।


এবিষয়ে তৃণমূলের যুব সভাপতি প্রবির ঘোষ জানিয়েছেন,পায়ে হেঁটে শ্রমিকদের বাড়ি ফেরার কথা শুনে বিধায়ক গৌতম দাসের নির্দেশে গঙ্গারামপুর ছাত্র ও যুব সংগঠনের তরফে আমরা তাদের মুড়ি,গুর ,চিরার মত শুকনো খাবার দিলাম ।
পরিযায়ী শ্রমিকদের পায়ে হেঁটে বাড়ি ফেরার খবর পুলিশ প্রশাসনের কাছে পৌঁছাতে তড়িঘড়ি সেই স্থানে পৌঁছায় এসডিপিও দীপ কুমার দাস,গঙ্গারামপুর থানার আইসি পূর্ণেন্দু কুমার কুন্ডু সহ অন্যান্য পুলিশ কর্মীরা।
এদিন পুলিশ প্রশাসন ভিন রাজ্য থেকে আসা পরিযায়ী শ্রমিকদের মেডিক্যাল চেকআপ করিয়ে বাড়ি পৌঁছে দেবার চেষ্টা করছে।


এসডিপিও দীপ কুমার দাস জানিয়েছেন,বাইরে থেকে আসা শ্রমিকদের খাবারের ব্যবস্থা করা হয়েছে,পাশাপাশি তাদের মেডিক্যাল করিয়ে বাড়ি পৌঁছে দেবার ব্যবস্থা করা হবে।
পরিযায়ী শ্রমিকদের পায়ে হেঁটে বাড়ি  ফেরার কথা শুনে এদিন বিজেপি থেকেও তাদের খাবারের ব্যবস্থা করা হয়।
এবিষয়ে বিজেপি কর্মী বৃন্দাবন ঘোষ জানিয়েছেন,আমরা প্রায় ৬০ জনের মতো ভিন রাজ্য থেকে ফেরা শ্রমিকদের পায়ে হেঁটে বাড়ি ফেরার কথা শুনে তাদের জন্য খাবারের ব্যবস্থা করেছিলাম।


ভিন রাজ্য থেকে পায়ে হেঁটে এরাজ্যে ফেরত দুই পরিযায়ী শ্রমিক জানিয়েছেন,লক ডাউনের আগে উত্তর প্রদেশে কাজে গিয়েছিলাম।লক ডাউন শুরু হওয়ায় আটকে গিয়েছিলাম।এরপর পায়ে হেঁটেই বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছি।পাঁচ দিন ধরে ভাত খাইনি।আজ অনেকেই খাবার দিল,ভালো লাগছে।

0/Post a Comment/Comments