কোরোনা থেকে জেলা বাসিকে সচেতন করতে ঐতিহাসিক বারুণী স্নানের মেলা,

কোরোনা থেকে জেলা বাসিকে সচেতন করতে ঐতিহাসিক বারুণী স্নানের মেলা ও শিব বাড়ি , গঙ্গারামপুর এর মত বড় দুটি হাট বন্ধের নির্দেশ দেওয়া হল ।




বুধবার দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা প্রশাসনের নির্দেশ পেতেই গঙ্গারামপুর পৌরসভার তরফে আলোচনার পরে মাইকযোগে এই সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয় পৌরসভার তরফে। চেয়ারম্যান জানিয়েছেন কোরোনা থেকে মানুষকে সচেতন করতেই  এমন প্রচার করা হয়েছে।

 তবে কোন পুণ্যার্থী যদি বারুণী স্নান করতে চায় তবে দলবদ্ধভাবে জমায়েত না করে, একজন একজন করে গিয়ে পুণ্যার্থীরা স্নান করতে  পারে।
                  কোরোনার আতঙ্কে জেরবার সাধারণ মানুষজন। জেলা প্রশাসনের তরফে ইতিমধ্যেই মানুষজনকে সচেতন করতে বিভিন্নভাবে উদ্যোগ নিয়েছে, বুধবার জেলা প্রশাসনের মিটিং এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে যে সমস্ত জমায়েত নিষিদ্ধ বলে ঘোষণা করা হয়েছে। গঙ্গারামপুর পৌরসভা সূত্রের খবর, শহরের মধ্যে শিববাড়ি ও গঙ্গারামপুর নিউমার্কেটের মতো হাট দুটি বিরাট আকারের জমায়েত হয়ে সেখানে মানুষজনের প্রয়োজনে জমায়েত হন।

 এই দুটি হাট রবিবার, বুধবার , ও সোমবারে বসত। ইতিমধ্যেই আগামী রবিবার শিববাড়ি তে ঐতিহাসিক বারুণী স্নানের মেলা রয়েছে। সেখানে জেলার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে লক্ষাধিক পুণ্যার্থী রা  ভিড় জমিয়ে থাকেন। এমন ধরনের জমায়েত হবার ফলে করোনাভাইরাস আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা থেকে যায় বলে অনুমান করা হচ্ছে।
এ বিষয়ে গঙ্গারামপুর পৌরসভার চেয়ারম্যান অমলেন্দু ভূষণ সরকার বিগত দিনের শিববাড়ি মেলা কমিটি র সদস্যদের সঙ্গে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেন যে, এবার জমায়েত করে বারুণী স্নান ও মেলা বসানো যাবে না।শুধুমাত্র যদি কোন পুণ্যার্থী পুণ্যফল এর আশায় স্নান করতে আসে তবে কোনো রকম জমায়েত না করে একজন একজন করে পুনর্ভবা নদীর ঘাটে গিয়ে স্নান করতে পারবে।
কোরোনার থাবায় এবার বড় দুটি হাট বন্ধ হওয়ার পাশাপাশি ঐতিহাসিক বারুণী স্নানের মেলা বন্ধ হয়ে যাওয়ায় প্রশাসনের যে সিদ্ধান্ত ও পৌরসভার তরফে মাইকযোগে এমন সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁছে দেওয়ার জন্য সাধুবাদ জানিয়েছেন সকলেই।

0/Post a Comment/Comments

Previous Post Next Post
Contact for advertising : 9831738670