ব্লক ভিত্তিক বড় উৎসব বলতে ‘‌গাজোল উৎসব’‌ এবং সিধু-কানু-বিরসা-জিতু মেলা।

নিজস্ব প্রতিবেদক,

 মালদা:




 ব্লক ভিত্তিক বড় উৎসব বলতে ‘‌গাজোল উৎসব’‌ এবং সিধু-কানু-বিরসা-জিতু মেলা। 

বিবিধ মেলাকে এক ছাদের তলায় নিয়ে এই উৎসব। পুষ্প প্রদর্শনী থেকে বইমেলা, শিশু উৎসব থেকে চিত্র প্রদর্শনী, বিজ্ঞান মডেল প্রদর্শনী থেকে সাহিত্যচর্চা-‌সহ বিভিন্ন বিভাগের প্রতিযোগিতা-‌সব একই উৎসবে রাখা হয়েছে।

 ২৯ বছর ধরে একটু একটু করে আজ পরিণত হয়েছে। শুক্রবার রঙিন শোভাযাত্রার মধ্য দিয়ে সূচনা হয়ে গেল উৎসবের। 

গাজোলের বিভিন্ন রাজপথ রঙিন করে শোভাযাত্রা শেষ হয় উৎসব প্রাঙ্গণ গাজোল হাই স্কুল মাঠে। উৎসবের সূচনা করেন জেলা সভাধিপতি গৌর মন্ডল।




 বেলুন এবং পায়রা উড়িয়ে পতাকা উত্তোলন ও প্রদীপ প্রজ্জ্বলনের মধ্য দিয়ে গাজোল উৎসবের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয়। 

এদিন উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে হাজির ছিলেন জেলাশাসক রাজর্ষি মিত্র, জেলা পুলিশ সুপার অলোক রাজোরিয়া, বিধায়ক দিপালী বিশ্বাস, সদর মহকুমা শাসক সুরেশ চন্দ্র রানো, উৎসব কমিটির সম্পাদক তথা গাজোলের বিডিও উষ্ণতা মোক্তান প্রমুখ। 

 মালদা জেলা পরিষদের সভাধিপতি গৌর মন্ডল বলেন, ‘‌গাজলের কৃষ্টি সংস্কৃতিকে তুলে ধরার উৎসব গাজোল উৎসব। 

গাজোলে প্রচুর শিল্পী রয়েছেন, রয়েছেন আদিবাসী ভাই-বোনেরাও। তাঁরা তাঁদের সংস্কৃতি বিভিন্ন দিক তুলে ধরছেন।

 আমাদের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদ্যোগে রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তের শিল্পীদের নানা অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণের সুযোগ করে দেওয়া হচ্ছে।’‌

 জেলাশাসক রাজর্ষি মিত্র বলেন, ‘এত বছর ধরে এই উৎসব এখানে চলে আসছে এইজন্য গাজোলবাসীর সাধুবাদ প্রাপ্য। 




উৎসব এবং মেলার মধ্য দিয়ে মানুষ তার জীবনের অনেক চাওয়া-‌পাওয়া, আনন্দকে খুঁজে পান।’‌ জেলা পুলিশ সুপার বলেন, ‘‌দক্ষিণবঙ্গে চাকরি করার সুবাদে অনেকটা সময় সেদিকে কাটিয়েছি। 

এই সময়টায় দেখেছি দক্ষিণবঙ্গে বিভিন্ন জায়গায় প্রচুর মেলা এবং উৎসব হয়ে থাকে। 

গাজোলে এসে ব্লক স্তরের এত বড় মেলা দেখলাম। পঞ্চায়েত সমিতির পাশাপাশি গাজোল ব্যবসায়ী সমিতি সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন।’‌

0/Post a Comment/Comments

AB Banga News-এ খবর বা বিজ্ঞাপন দেওয়ার জন্য যোগাযোগ করুনঃ 9831738670 / 7003693038, অথবা E-mail করুনঃ banganews41@gmail.com