এনআরসির আতঙ্কে আত্মঘাতী রিকশাচালকের পরিবারের পাশে রতুয়ার তৃণমূল নেতা মোহাম্মদ ইয়াসিন।

মালদা,

এনআরসির আতঙ্কে মৃত মধু সাহার পরিবারে পাশে দাঁড়ালেন রতুয়া তৃণমূল নেতা মোহাম্মদ ইয়াসিন। 




এদিন তিনি ওই আত্মঘাতী রিক্সাচালকের পরিবারকে ব্যক্তিগত আর্থিক সহযোগিতা ও সরকারি প্রকল্পের সুযোগ-সুবিধা পাইয়ে দেয়ার আশ্বাস দেন। 

 উল্লেখ্য, মৃত ওই ব্যক্তির নাম মধু সাহা বাড়ি রতুয়া-১ ব্লকের বিন পাড়া গ্রামে।পেশায় রিকশাচালক।গত রবিবার নিজের বাড়িতেই গলায় দড়ি দিয়ে আত্মঘাতী হন ওই রিকশাচালক।

ভোটার কার্ড ও রেশন কার্ড রয়েছে নেই আধার কার্ড,নতুন আধার কার্ডের জন্য বিভিন্ন জায়গায় ঘুরে বেড়িয়েছেন।কখনো ব্যাংকে আবার কখনো সিএসপি কেন্দ্রগুলোতে।

দিন কয়েক আগে তিনি নিজের ও স্ত্রী পঞ্চমী সাহার জন্য রতুয়া ব্লক মোড়ের এক সিএসপি কেন্দ্রতে ৭০০ টাকা দিয়ে নতুন আধার কার্ড তৈরির জন্য আবেদন করেন, কিন্তু সেখানেও আধার কার্ড তৈরি হয়নি।আধার কার্ড না থাকায় এনআরসির আতঙ্ক তার মনের মধ্যে বাসা বাঁধে।

আধার কার্ড না থাকায় দীর্ঘদিন ধরে মানসিক অবসাদে ভুগছিলেন।পাড়া-প্রতিবেশী ও পরিবারের লোকেরা বিভিন্নভাবে বুঝিয়েও তিনি বুঝে উঠতে পারেননি। 

রবিবার নিজের ঘরেই গলায় দড়ি দিয়ে আত্মঘাতী হন রিকশাচালক মধু সাহা।

সেই অসহায় পরিবারের পাশে গিয়ে দাঁড়ালেন রতুয়ার তৃণমূল নেতা মোহাম্মদ ইয়াসিন।তিনি সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে জানান সারা ভারতবর্ষে এনআরসি নিয়ে বিজেপি খেলা খেলছে তাতে খেটে খাওয়া মানুষের সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হচ্ছে। 




এনআরসির আতঙ্কে এক হতদরিদ্র রিকশাচালক আত্মঘাতী হয়েছেন। এনআরসি নিয়ে নির্দিষ্ট কোন জাতী আতঙ্কে নয়,সব ধর্মের মানুষ আতঙ্কিত।তার জ্বলন্ত উদাহরণ রতুয়ায় দেখা গেল। 

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যতদিন ক্ষমতায় আছেন বাংলাতে এনআরসি হতে দেবেন না।আমরা রতুয়া তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে বিজেপি সরকারকে ধিক্কার জানাই।

0/Post a Comment/Comments

Previous Post Next Post
Contact for advertising : 9831738670