আসন সংরক্ষণের কোপে পরে ইংরেজবাজার পুরসভার চেয়ারম্যান নিহার ঘোষ,

মালদা, ১৭ জানুয়ারি।

 আসন সংরক্ষণের কোপে পরে ইংরেজবাজার পুরসভার চেয়ারম্যান নিহার ঘোষ তার নিজের ওয়ার্ডে দাঁড়াতে পারবেন না। 




এমনকি একাধিক হেভিওয়েট কাউন্সিলরেরাও তাঁদের নিজের ওয়ার্ডে এবার পুরো নির্বাচনে প্রার্থী হতে পারবেন না। 

শুক্রবার মালদার দুই পুরসভার (ইংরেজবাজার পৌরসভা এবং পুরাতন মালদা পুরসভা) আসন সংরক্ষণ তালিকা প্রকাশ করেছে জেলা নির্বাচন আধিকারিক।

  সেই তালিকা প্রকাশ হওয়ার পর থেকেই তৃণমূল সহ বিভিন্ন দলের কাউন্সিলরদের ঘুম উবে গিয়েছে।

  তবে খুব একটা হেরফের হয় নি পুরাতন মালদা পুরসভার আসন সংরক্ষণের ক্ষেত্রে। ওই পুরসভার মোট ২০টি ওয়ার্ড রয়েছে । 

তার মধ্যে কয়েকটি ওয়ার্ড সংরক্ষণের তালিকা এসেছে। তবে চেয়ারম্যান কার্তিক ঘোষ এবং ভাইস চেয়ারম্যান চন্দনা হালদার নিজেদের ওয়ার্ড থেকে দাঁড়াতে পারবেন । 

ব্যতিক্রম শুধু ইংরেজবাজার পুরসভা। পুরসভা সূত্রে জানা গিয়েছে, ইংরেজবাজার পুরসভার ২৯ টি ওয়ার্ডের যে সংরক্ষণ তালিকা প্রকাশ হয়েছে তাতে বর্তমান চেয়ারম্যান নিহার ঘোষের ১৫ নম্বর ওয়ার্ডটি মহিলা সংরক্ষিত হয়ে গিয়েছে। 

ফলে তিনি আর এই ওয়ার্ড থেকে আগামী পুরো নির্বাচনে প্রার্থী হতে পারবেন না। 

এক্ষেত্রে নিহারবাবুর কোন সমস্যা হবে না বলেই মনে করা হচ্ছে। তার কারণ, পাশের ১৬ নম্বর ওয়ার্ডের নিহারবাবুর স্ত্রী গায়েত্রী ঘোষ তৃণমূল দলের কাউন্সিল রয়েছেন। 

এই ১৬ নম্বর ওয়ার্ডটি এবারে সংরক্ষণের তালিকা আসে নি। তৃণমূল সূত্রে জানা গিয়েছে , তৃণমূল পরিচালিত ইংরেজবাজার পুরসভার চেয়ারম্যান নিহার ঘোষ তার নিজের ১৫ নম্বর ওয়ার্ডটি তার স্ত্রীকে ছেড়ে দিয়ে, পুনরায় ১৬ নম্বর ওয়ার্ডে তৃণমূল দলের প্রার্থী হবেন। 

 সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে প্রাক্তন চেয়ারম্যান তথা ২২ নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূল কাউন্সিলর নরেন্দ্রনাথ তেওয়ারি এবং ২৬ নম্বর ওয়ার্ডের নরেন্দ্রনাথবাবুর স্ত্রী তথা কাউন্সিলার অঞ্জলী তেওয়ারির ক্ষেত্রে। এবারে তপশিলি জাতি হিসেবে ওই ২২ও ২৬ নম্বর ওয়ার্ড দুটি সংরক্ষিত হয়ে গিয়েছে।

 ফলে নরেন্দ্রনাথ তেওয়ারি এবং তার স্ত্রী অঞ্জু তেওয়ারি কোথায় প্রার্থী হবেন তা নিয়ে যথেষ্ট বিড়ম্বনায় তৃণমূল।  

আসন সংরক্ষণের তালিকা প্রকাশ হওয়ার পর থেকে নরেন্দ্রনাথবাবুর সঙ্গে কোনো রকমভাবে যোগাযোগ করা যায় নি।

 সংরক্ষণের কোপ পরে এবার পুরো নির্বাচনে ১৮ নম্বর ওয়ার্ডের চারবারের কাউন্সিলর আশীষ কুন্ডু তার নিজের ওয়ার্ড থেকে দাঁড়াতে পারছেন না । ওই ওয়ার্ডটি মহিলা সংরক্ষিত হয়ে গিয়েছে। একই রকমভাবে প্রথমবার দাঁড়িয়ে কাউন্সিলর হয়েছিলেন তৃণমূলের ছাত্র নেতা তথা ১২ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রসেনজিৎ দাস। 

এবারে ১২ নম্বর ওয়ার্ডটিও মহিলা হিসেবে সংরক্ষিত হয়ে গিয়েছে। উল্লেখ্য,  ইংরেজবাজার পৌরসভার ২৯ টি ওয়ার্ডের মধ্যে মহিলা হিসেবে সংরক্ষিত হয়েছে ১,৩,৬,৯,১২,১৫,১৮,২১,২৫ এবং ২৭ নম্বর ওয়ার্ড।

 এছাড়াও ২২, ২৬ এবং ২৭ এই তিনটি ওয়ার্ড হয়েছে তপশিলি জাতি সংরক্ষিত। বাকি ওয়ার্ডগুলো সংরক্ষণের তালিকায় আসে নি। ১,৯ নম্বর ওয়ার্ডে রয়েছে বিজেপি কাউন্সিলর। এবং ২৫ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর রয়েছেন সিপিএমের ।

 বাকি ওয়ার্ডগুলো রয়েছে তৃণমূলের দখলে। আসন সংরক্ষণ প্রসঙ্গে তৃণমূলের জেলা সভাপতি মৌসুম নূর বলেন,  মালদার দুটি পুরসভায় সংরক্ষণের তালিকা প্রকাশ হয়েছে।

 সংরক্ষণের কোপে পড়ে অনেকেই প্রার্থী হতে পারবেন না। এক্ষেত্রে এদেরকে কিভাবে স্থানান্তরিত করা যায় তা নিয়ে দলের মধ্যে আলোচনা করা হবে।

0/Post a Comment/Comments

Previous Post Next Post
Contact for advertising : 9831738670