ব্যবসায়ীদের পট ব্যবসায় আচমকা ছন্দপতন।

মালদা, ৩১ ডিসেম্বর-




বছর পাঁচেক আগেও শিলিগুড়ি থেকে রকমারি মাটির পট মালদায় আসত। ব্যবসায়ীরা নিয়ে এসে জেলার শিল্পী থেকে সৌন্দর্য-‌বিলাসীদের কাছে বিক্রি করতেন। 

কিন্তু এখন সে-‌সব দূরাস্ত। ব্যবসায়ীদের এই পট ব্যবসায় আচমকা ছন্দপতন। বিকল্প হিসেবে উঠে এলেন নিবারণ পাল। 

নিজের হাতেই তৈরি করতে শুরু করলেন রকমারি পট। শুধু পটই নয়, বিভিন্ন রকমের টবের ক্ষেত্রেও তাঁর জুড়ি মেলা ভার। 

জেলায় একমাত্র পট শিল্পী তিনিই বলা চলে। দিনকে দিন চাহিদা বাড়ছে তাঁর পট, টবে।

 মালদার গাজোল ব্লকের মুড়িয়াকুন্ডুতে বাড়ি নিবারণের। 

পরম্পরা কুমোরের কাজ তাঁদের। 

কিন্তু নিবারণ সেই ধারা অন্য দিকে নিয়ে গেলে। টবের বিভিন্নতা নিয়ে এলেন। 

সঙ্গে সংযোজন পটের। প্রায় ৬০ রকমের পট তৈরি করেন নিজের হাতে। 

মাটির দলা চাকতিতে ফেলে, তা ঘুরিয়ে তাঁর হাতের ছোঁয়ায় একের পর এক অদ্ভুত অদ্ভুত পট তৈরি হয়ে থাকে।

 যা দেখে সৌন্দর্যবিলাসীরা রীতিমতো অবাক। এর আগে শিলিগুড়ি থেকেও এ ধরণের পট কেউ দেখতে পান নি।

 কাটিং পট থেকে কাটা নক্সা করা, আবার কর্ণার পট থেকে টেবল পট-‌কী নেই তাঁর কাছে। এমনকী গাছের গুড়ির মতো দেখতে এমন পটও রয়েছে। 

২০ টাকা থেকে শুরু। রয়েছে ১০০ টাকা পর্যন্ত। আবার অন্যদিকে সাধারণ টবের দিকে না গিয়ে তিনি ক্যাকটাস, হ্যাঙ্গিং টব, বনসাই টব, ওয়াল টবের দিকে গেলেন। 

রকমারি টবের সম্ভার তাঁর কাছেই রয়েছে। আবার নিজের হাতেই তিনি এসব তৈরি করে থাকে। 

জেলার বেশ কিছু মেলায় তিনি পসরা সাজিয়ে বসেন।

 সমস্যা হল শহর থেকে মুড়িয়াকুন্ডু প্রায় ৩০ কিলোমিটার।

 ফলে তাঁকে ছুটে আসতে হয় শহরের দিকে। এমনকী পরিবান্ধব মাটির এসব রকমারি সামগ্রী দিয়ে তিনি মন্ডপ সজ্জারও কাজও করে থাকেন। 

নিবারণ বলেন,‘‌মাটির পট, টব নিজে থেকেই তিনি তৈরি করতে শুরু করেছেন। 

এরজন্য কারোর কাছে শেখার প্রয়োজন হয় নি আমার। বাড়িতে মাটির কাজের আবহ ছিলই আগে থেকে। 

সেখান থেকে মাটি ঘাঁটাঘাঁটি করতে করতে আমার এসব সামগ্রীর প্রতি আগ্রহ তৈরি হয়।’‌

0/Post a Comment/Comments

AB Banga News-এ খবর বা বিজ্ঞাপন দেওয়ার জন্য যোগাযোগ করুনঃ 9831738670 / 7003693038, অথবা E-mail করুনঃ banganews41@gmail.com