গোটা শহরকে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখার দায়িত্ব পৌরসভার।

নিজস্ব প্রতিবেদক,




 গোটা শহরকে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখার দায়িত্ব পৌরসভার। কিন্তু ঠিকঠাক শহরের বিভিন্ন ওয়ার্ড পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করা হচ্ছে না এমন অভিযোগ উঠেছে বারবার। 

তেমনি অভিযোগ উঠে এসেছে পৌরসভার 12 নম্বর ওয়ার্ড থেকেও। 

বারবার পৌরসভাকে জানানো সত্ত্বেও পরিষ্কার করা হয়নি ওয়ার্ডের নোংরা। 

এমনই অভিযোগ করেছেন পৌরসভার প্রাক্তন চেয়ারম্যান কৃষ্ণেন্দু নারায়ন চৌধুরী। 

তাই এবার 12 নম্বর ওয়ার্ডের নোংরা আবর্জনা ফেলা হলো পৌরসভায়। শুক্রবার সকালে অফিস কর্মীরা ভিতরে ঢুকতেই চক্ষু চড়ক গাছ হয় তাদের। 




তারা দেখতে পান পুরসভার ঢোকার গেটে আবর্জনা পড়ে রয়েছে। এই ঘটনা ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে শুক্রবার সকালে। 

 ঘটনা প্রকাশ্যে আসতেই তড়িঘড়ি গেটের সামনে থেকে সেই আবর্জনা পরিষ্কার করা হয়। তবে এই বিষয়ে কিছু বলতে চাননি উপস্থিত অফিস কর্মীরা। 

 এই বিষয়ে ইংরেজবাজার পৌরসভার প্রাক্তন চেয়ারম্যান তথা কাউন্সিলর কৃষ্ণেন্দু নারায়ণ চৌধুরী অভিযোগ করেন, শহরকে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখার দায়িত্ব ইংরেজবাজার পৌরসভার।

 পৌরসভার 12 নম্বর ওয়ার্ডের নোংরা আবর্জনা পরিষ্কার করার জন্য বারবার পুরসভাকে জানানো হচ্ছে। কিন্তু তারা ফোন ধরছেন না। 

নোংরা আবর্জনা পরিষ্কার করার ব্যাপারে কোনো উদ্যোগ গ্রহণ করছে না। তাই আজকে ওই এলাকার মানুষজন নোংরা আবর্জনা পৌরসভার ভেতরে গিয়ে ফেলে আসে। 

 এ বিষয়ে ইংরেজবাজার পৌরসভার 12 নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রসেনজিৎ দাস জানান, এলাকার লোক ঠিকঠাক পরিষেবা পাচ্ছিনা। এলাকার নোংরা আবর্জনা ঠিকঠাক পরিষ্কার করা হচ্ছে না। এলাকায় বাড়ছে মশার উপদ্রব। 

তাই আজ এই ওয়ার্ডের লোকজন ক্ষিপ্ত হয়ে পৌরসভার ভেতরে গিয়ে নোংরা আবর্জনা ফেলে আসেন। 

এই বিষয়ে ইংরেজবাজার পৌরসভার চেয়ারম্যান নীহার রঞ্জন ঘোষ জানান, যখন থেকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাকে চেয়ারম্যান করেছেন তখন থেকেই কিছু লোক তাকে কালিমালিপ্ত করার জন্য চক্রান্ত করছে। 

পুরসভার বিভিন্ন ওয়ার্ড ঠিকঠাক পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করা হচ্ছে। কিছু লোক চক্রান্ত করে এই ঘটনা ঘটাচ্ছে। 

এর তীব্র প্রতিবাদ এবং নিন্দা জানান চেয়ারম্যান।

0/Post a Comment/Comments

Previous Post Next Post
Contact for advertising : 9831738670