সন্ধ্যা হলে মদের আসর বসে হরিশ্চন্দ্রপুর হাই স্কুল মাঠ ও গ্রন্থাগার লাগোয়া পার্কে|

মালদা ,২৪নভেম্বর: 





সন্ধ্যা হলে মদের আসর বসে হরিশ্চন্দ্রপুর হাই স্কুল মাঠ ও গ্রন্থাগার লাগোয়া পার্কে| পড়ে থাকে মদের বোতল, ভাঙ্গা কাঁচের টুকরো| ক্ষোভ এলাকায় | 

মদ্যপায়ীদের অত্যাচার দূষিত হচ্ছে হরিশ্চন্দ্রপুর এর ঐতিহ্যবাহী দুটি খেলার মাঠ| একটি হরিশ্চন্দ্রপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠ অপরটি হরিশচন্দ্রপুর টাউন লাইব্রেরী ময়দান| 




ওই দুটি মাঠ হরিশ্চন্দ্রপুর এর খেলাধুলা থেকে মিটিং-মিছিলের আখড়া| 

কিন্তু সন্ধ্যে হলেই মাঠ দুটিতে বসছে মদ্যপানের আসর| পড়ে থাকছে ভাঙ্গা মদের বোতল থেকে অন্যান্য নেশার সামগ্রী | 

এমনটাই অভিযোগ আনছেন স্থানীয় এলাকাবাসী থেকে হরিশ্চন্দ্রপুর এর বুদ্ধিজীবী মহল | 




হরিশ্চন্দ্রপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মফিজউদ্দিন আহমেদ জানালেন মোট 36 বিঘার ওপর উচ্চ বিদ্যালয়টি অবস্থিত| তার মধ্যে মাঠ একটি উল্লেখযোগ্য অংশ, এই মাঠে মহকুমা থেকে শুরু করে জোনাল এমনকি জেলাস্তরে বিভিন্ন খেলাধুলার আয়োজন করা হয়| 

এছাড়া এখানে ক্রিকেট কোচিং ক্যাম্প আছে| সকলের দিকে প্রাপ্ত ভ্রমণকারীরাও এই মাঠে আছেন| মাটি চারিদিক দিয়ে বাউন্ডারি ওয়াল দিয়ে ঘেরা, তা সত্যে সন্ধ্যা নামলেই বসে মদ্যপানের আসর |




 এরা সেখানে বিভিন্ন নেশাও করে| কাচের বোতল ভেঙে রাখে| সকালের দিকে মাঠের স্থানীয়রা গরু বেঁধে রাখে | 

এ ব্যাপারে হরিশ্চন্দ্রপুর পুলিশ প্রশাসনকে জানানো হয়েছে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য| এলাকায় ঘুরে স্থানীয় বাসিন্দাদের এ ব্যাপারে সচেতন করা হয়েছে| 

প্রশাসন থেকেও বারবার ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে, তবু এর কোনো সুরাহা হয়নি বলে জানালেন মফিজ উদ্দিন বাবু| 

 এ প্রসঙ্গে হরিশ্চন্দ্রপুর সংগঠন সমিতি পরিচালিত ক্রিকেট কোচিং ক্যাম্পের প্রশিক্ষক তথা প্রখ্যাত ক্রিকেটার রানা প্রতাপ রায় জানালেন সকাল-বিকাল প্র্যাকটিসের সময় মদের ভাঙ্গা বোতল পড়ে থাকে |

 খেলোয়াড়রা প্রায় কাঁচের টুকরো তে আহত হচ্ছেন | মদের বোতল দেখে ছোট ছোট শিশুদের প্রশ্নের মুখে অপ্রস্তুত হতে হচ্ছে তাকে | অনেকবার অভিযোগ করা হয়েছে |

 রেড ও হয়েছে অনেকবার | সাময়িকভাবে কিছুদিনের জন্য মদের আড্ডা বন্ধ হয়েছে, কিন্তু বেশ কিছুদিন যেতেই আবার যথারীতি মদ্যপ দের সংখ্যা বেড়ে গেছে | 

 এ প্রসঙ্গে হরিশ্চন্দ্রপুর গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার সদস্য তথা ব্লক যুব কংগ্রেসের প্রাক্তন সভাপতি বাপন মল্লিক জানালেন বিষয়টি তিনি এলাকাবাসীদের কাছ থেকে শুনেছেন | 

মার দুটিতে পঞ্চায়েত থেকে আলোর ব্যবস্থা করা যায় কিনা সেটা দেখা হবে | 

এই বিষয়ে তিনি ভিডিওর সাথে কথা বলবেন | এ প্রসঙ্গে হরিশ্চন্দ্রপুর থানার আইসি সঞ্জয় কুমার দাস জানান এর আগেও ওই মাঠ দুটিতে পুলিশি রেড করা হয়েছে |

 পুনরায় আবার ব্যবস্থা নেওয়া হবে | তাছাড়া তিনি এলাকার জনপ্রতিনিধি ও যুব সমাজকে এ ব্যাপারে সজাগ থাকতে অনুরোধ জানালেন | 

অন্যদিকে হরিশ্চন্দ্রপুর 1 নম্বর ব্লকের বিডিও অনির্বাণ বসু জানান ইতিপূর্বেও এ ধরনের অভিযোগ হয়েছে | প্রশাসনের তরফ এর আগেও ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে |

 আবারো তিনি এ ব্যাপারে পুলিশ প্রশাসনকে কড়া পদক্ষেপ নিতে অনুরোধ জানাবেন | এছাড়াও যদি যদিও মাঠ যেহেতু দুটি সংস্থার সম্পত্তি |

 তাই সেখান থেকে যদি মাঠ হাই মাস্ট বসানোর প্রস্তাব আছে তাহলে সেটি বসানোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে |

0/Post a Comment/Comments

Previous Post Next Post
Contact for advertising : 9831738670