রাস্তার বিদ্যুৎ আলো জ্বালানোর ঘটনাকে কেন্দ্র করে বিজেপি –তৃণমূলের গোলমালে তিন তৃণমূল কর্মী গুরুতর আহত।

বাবাই সূত্রধর,

দক্ষিণ দিনাজপুর,২১ শে অক্টোবর;

রাস্তার বিদ্যুৎ আলো জ্বালানোর ঘটনাকে কেন্দ্র করে বিজেপি –তৃণমূলের গোলমালে তিন তৃণমূল কর্মী গুরুতর আহত।চাঞ্চল্য ঘটনাটি ঘটেছে রবিবার রাত্রে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার গঙ্গারামপুর থানার দেবীপুর এলাকায়।বিজেপি কর্মীদের বোমা,পিস্তলের গুলি ও হাসুয়ার কপে গুরুতর আহত অবস্থায় তিন তৃণমূল কর্মীকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

তৃণমূল নেতা ঘটনাকে কেন্দ্র করে কেশব রায়(ভোটকা)১৭জন সহ অনেকের নামে থানায় লিখিত অভিযোগ জানিয়েছেন।যদিও বিজেপি নেতা বিজেপির বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ করেছেন।

অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ না নিলে আন্দোলনে নামবেন আদিবাসীদের সংগঠন সিঙ্গেল অভিযান ।

পুলিশ ঘটনার তদন্তে নেমেই বিজেপি কর্মী ভগীরথ রায়ের স্ত্রী রহিলা রায় কে দেবীপুর থাকে গ্রেপ্তার করে পুরো ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। 

 হাসপাতাল সূত্রে খবর, বোমার আঘাতে আহত হওয়া ওই যুবকের নাম সুজন টুডু,তার বাম হাতে বোমা লেগেছে।বোমা,পিস্তলের গুলি,হাসুয়ার কোপে গুরুতর আহত হয়েছে রণতোষ হাঁসদা,পিউজ মার্ডি সহ আরো একজন গুরুতর অবস্থায় গঙ্গারামপুর সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

 এলাকার তৃণমূল নেতা কর্মীদের অভিযোগ, লোকসভা ভোটে বিজেপি প্রাথি সুকান্ত মজুমদার জয় লাভ করার পর গঙ্গারামপুর এর দেবীপুর বিজেপি কর্মী কেশব রায় এর নেতৃত্বে বেশ কিছু স্থানীয় ও আশেপাশের বিজেপি নেতা কর্মীদের সহযোগিতায় বিভিন্ন ধরনের গোলমাল করে যাচ্ছে তারা ।

কখনো পুকুর দখল, বাড়ি ভাংচুর,ভয় দেখানো সহ একাধিক ঘটনা তারা ঘটিয়ে যাচ্ছে বলে অভিযোগ শাসক দলের।।

রবিবার রাত্রে রাস্তার পথের আলো জ্বালানো কে কেন্দ্র করে দুপক্ষের বিবাদ শুরু হয়।

বিজেপির কর্মীরা সেখানে ৭/৮রাউন্ড গুলি ও ৩/৪ টি বোমা ফাটানো হয় বলে অভিযোগ তৃণমূলের। এবিষয়ে তৃণমূল নেতা তথা পঞ্চায়েত সমিতির কর্মাদক্ষ নিকোলাস হেমরম অভিযোগ করে জানিয়েছেন;বিজেপি কর্মী কেশব রায় এর নেতৃত্বে বেশ কিছু স্থানীয় ও আশেপাশের বিজেপি নেতা কর্মীদের সহযোগিতায় বিভিন্ন ধরনের গোলমাল করে যাচ্ছে তারা ।

কখনো পুকুর দখল, বাড়ি ভাংচুর,ভয় দেখানো সহ একাধিক ঘটনা তারা ঘটিয়ে চলেছে তারা। আক্রান্ত তৃণমূল কর্মীর দাদা জানিয়েছেন;দোষীদের বিরুদ্ধে পুলিশ করা পদক্ষেপ নিক সেটাই চাইবো।

 আদিবাসী সিঙ্গেল অভিযানের গঙ্গারামপুর এর সভাপতি রবিন মুমু জানিয়েছেন,আদিবাসীদের উপর এমন অত্যাচার মানব না।অভিযুক্তরা দ্রুত ধরা না পড়লে আন্দোলনে নামবো।

 যদিও বিজেপি কর্মীদের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ অস্বীকার করছেন বিজেপির জেলা সভাপতি শুভেন্দু সরকার।

0/Post a Comment/Comments

Previous Post Next Post
Contact for advertising : 9831738670