শেষ হল সেন্ট পলস্ কলেজর আন্তর্জাতিক ওয়েবিনার'




সেন্ট পলস্ ক্যাথিড্রাল মিশন কলেজের রসায়ন বিভাগ এবং অভ্যন্তরীণ গুণগত নিশ্চয়তা সেল (IQAC) এর যৌথ উদ্যোগে 29 ও 30 আগস্ট 'বায়ো-কেমিক্যাল ইন্টারফেসে রসায়ন' শীর্ষক একটি দুদিনের আন্তর্জাতিক ওয়েবিনার সুসম্পন্ন হল। সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার, অধ্যাপক দেবাশীষ দাস। রসায়ন বিভাগের প্রধান তথা সম্মেলনের আহ্বায়ক ড. বিশ্বজিৎ পাল তাঁর মূল বক্তব্যে বিশ্বব্যাপী বর্তমান ভয়াবহ পরিস্থিতির পরিপ্রেক্ষিতে এজাতীয় শীর্ষক বিষয়ে আলোচনার প্রাসঙ্গিকতার উপর জোর দেন। তিনি আরও উল্লেখ করেছেন যে এই ওয়েবিনারের অন্য উদ্দেশ্য হলো ব্রিটিশ রসায়নবিদ তথা জীববিজ্ঞানী এবং ডিএনএ গবেষণা বিস্তারে অকীর্তিত প্রথম প্রাণপুরুষ রোজালিন্ড ফ্রাঙ্কলিনের (১৯২০ - ১৯৫৮) প্রতি তাঁর জন্ম শতবার্ষিকী বছরে আন্তরিক শ্রদ্ধা জ্ঞাপন।



     এই আন্তর্জাতিক সম্মেলনে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ইতালি, জাপান, ইংল্যান্ড, ইজরায়েল এবং ভারতের মতো বিভিন্ন দেশের খ্যাতিমান বিশিষ্ট বিজ্ঞানীগণ আলোচ্য বিষয়ে তাঁদের সুচিন্তিত মতামত পরিবেশন করেছেন। আমন্ত্রিত বক্তাদের মধ্যে আমেরিকার ড. সূর্য দে মেলোনামার চিকিৎসা এবং ক্যান্সার প্রতিরোধ বিষয়ের উপর আলোকপাত করেন। ইতালির টরিনো বিশ্ববিদ্যালয়ের ড. আত্রেই দাসমহাপাত্র এই মহামারীর তীব্রতা বোঝার জন্য covid-19 পরিসংখ্যানে গণনা মডেলের (Computational modelling) প্রয়োজনীয়তা এবং প্রাসঙ্গিকতা  আলোচনা করেছেন। ইংল্যান্ডের মনরোগ বিশেষজ্ঞ ডাঃ রাজর্ষি দাস তাঁর বক্তৃতায় মানসিক স্বাস্থ্যের ওপর covid -19 এর প্রভাব সমাধানের জন্য অনুসরণীয় নির্দেশিকা বিষয়ে আলোকপাত করেছেন। জীব বিজ্ঞানে উদ্দীপক প্রতিক্রিয়াশীল উপাদান হিসাবে ডিএনএ কিভাবে কাজ করে তা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নর্থ ওয়েস্টার্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের ড. দেবলীনা সামন্ত তাঁর বক্তৃতায় তুলে ধরেছেন। আই.আই.টি তিরুপতির অধ্যাপক তথা রসায়নবিদ ড. গৌরী প্রসন্ন রায় আমাদের শরীরে জৈবপারদ যৌগের কুপ্রভাব এবং জৈবিক কোষে তার ক্রিয়া-কলাপ নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন। অন্য আমন্ত্রিত বক্তাদের মধ্যে জাপানের টোকিও বিজ্ঞান বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক তাকাসিরো আকিতসু এবং ইজরায়েলের টেল আভিভ বিশ্ববিদ্যালয়ের ড. মৌমিতা ঘোষও তাঁদের চিত্তাকর্ষক ও তথ্যবহুল বক্তৃতা উপস্থাপনা করেছেন।
 এছাড়াও ভারতবর্ষের বিভিন্ন রাজ্য এবং বিদেশ থেকে অংশগ্রহণকারী তরুণ উৎসাহী গবেষকগণ তাদের গবেষণার ফসল মৌখিক উপস্থাপনা আকারে প্রদর্শন করার জন্য এই ওয়েবিনার কে একটি অপার্থিব মঞ্চ হিসেবে পেয়েছিলেন। দেশ ও বিদেশ মিলিয়ে প্রায় 450 জন ব্যক্তি এই সম্মেলনে নিজেদেরকে নিবন্ধিভুক্ত করেছিলেন। 
   বিদায়-সম্ভাষণ পর্বে বিশ্বব্যাপী মহামারীর সময় এরকম যথাযথ তথ্য নির্ভর একটি দুদিনের সম্মেলন আয়োজন করার জন্য উপস্থিত শ্রোতামন্ডলী সংশ্লিষ্ট আয়োজক সংস্থার প্রতি উচ্ছ্বসিত প্রশংসা জ্ঞাপন করেন। অধ্যাপক বিশ্বজিৎ পালের ধন্যবাদ সূচক বক্তৃতা শেষে ওয়েবিনারের সমাপ্তি ঘোষিত হয়।

0/Post a Comment/Comments

Previous Post Next Post
Contact for advertising : 9831738670