বাগনানে মানবিক মুখ আশা কর্মীদের


 




রুপম দাস,বাগনান:

 ভিন রাজ্য থেকে আগত পরিযায়ী শ্রমিকদের সুস্থ করে তোলার নতুন নজির গড়লেন বাগনান থানার কল্যাণপুর এলাকার মহিলা আশা কর্মীরা। পরিযায়ী শ্রমিকদের অবহেলা বা ঘৃণা না করে তাঁদের স্নেহ, ভালবাসা ও মমতা দিয়ে সুস্থ করে তোলার সংগ্রামে অবতীর্ণ হয়েছেন এই মহিলারা। তাঁরা সম্পূর্ণভাবে নিজস্ব উদ্যোগে পানিত্রাস উচ্চ বিদ্যালয়ে কোয়ারেন্টাইন সেন্টার গড়ে তুলে ৭২ জন পরিযায়ী শ্রমিকের দেখভাল করছেন। তাঁদের এই উদ্যোগে সামিল হয়েছেন এলাকার মানুষ। রাজ্যের অন্যান্য জায়গায় যখন পরিযায়ী শ্রমিকদের এলাকায় প্রবেশ এবং কোয়ারেন্টাইন সেন্টার হওয়াকে কেন্দ্র করে ক্ষোভ-বিক্ষোভ দানা বাঁধছে, ভাঙচুর, পথ অবরোধে সামিল হচ্ছেন স্থানীয় মানুষ ঠিক তখনই সম্পূর্ণ উল্টো পথে হেঁটে কয়েকজন আশা কর্মীর হাত ধরে নতুন নজির সৃষ্টি করলেন কল্যাণপুরের মানুষ। রবিবার আশা কর্মীদের উদ্যোগে পানিত্রাস উচ্চ বিদ্যালয় সহ এলাকার অন্যান্য কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে থাকা শতাধিক শ্রমিককে সংবর্ধনা জ্ঞাপনের পাশাপাশি তাঁদের হাতে মাংস ভাত ও পানীয় জলের বোতল তুলে দেওয়া হয়। উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট সমাজসেবী সেলিমুল আলম, কল্যাণপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান সোমা ভৌমিক, সমাজসেবী দেবনারায়ন মাইতি ও এলাকার সকল আশা কর্মীবৃন্দ। কল্যাণপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের পক্ষ থেকে এদিন পানিত্রাস উচ্চ বিদ্যালয়ে থাকা চারজন পরিযায়ী শ্রমিকের হাতে একশো দিনের কাজের জব কার্ড তুলে দেওয়া হয়। বাকি সকল শ্রমিকদেরকেও শীঘ্রই এই কার্ড প্রদান করা হবে বলে জানানো হয়। আশা কর্মীদের এদিনের এই উদ্যোগকে মানবতার এক উজ্জ্বল নিদর্শন বলে ব্যাখ্যা করেন বাগনান-১ বিডিও সত্যজিৎ বিশ্বাস। তিনি বলেন করোনা পরিস্থিতির একেবারে প্রথম থেকেই আশা কর্মীরা নিজেদের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে বহিরাগতদের দেখভাল করে আসছেন। পরিযায়ী শ্রমিকদেরও চিকিৎসার ক্ষেত্রে চিকিৎসকদের পাশাপাশি তাঁরাও মানবিকভাবে পরিযায়ী শ্রমিকদের পাশে রয়েছেন। কল্যাণপুরের আশা কর্মীরা এদিন যে নজির স্থাপন করলেন তার জন্য কোনও প্রশংসাই যথেষ্ট নয়।

0/Post a Comment/Comments

Previous Post Next Post
Contact for advertising : 9831738670